আজ শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ঢাকার শাহবাগে পার্বত্য চট্টগ্রামে বনভূমি ধ্বংস রোধ, জীব বৈচিত্র্য রক্ষা ও ম্রো জনগোষ্ঠীদের উৎখাত বন্ধের দাবিতে সচেতন প্রকৃতি ও পাহাড়প্রেমী জনগণের অংশগ্রহনে শান্তিপূর্ণ মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।  

সমাবেশে বক্তারা বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ও নানা জাতিগোষ্ঠীর বৈচিত্র্যময় বর্ণাঢ্য সংস্কৃতি বাংলাদেশের সম্পদ। প্রাকৃতিক বনভূমি ও বহু বন্যপ্রাণীর শেষ আশ্রয়স্থল হল আমাদের এই পাহাড়। পরিতাপের বিষয় পরিবেশ ও প্রকৃতি বিনাশের নষ্ট প্রতিযোগিতায় আমরা হারাতে বসেছি অমূল্য বনভূমি ও জীববৈচিত্র্য। সেই সাথে কিছু স্বার্থান্বেষী মহল স্থানীয় জনগোষ্ঠীর ভূমি দখল করে গড়ে তুলছে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। সম্প্রতি এর মাত্রা যেন সীমা ছাড়িয়ে যাচ্ছে।

নিজেদের দাবি প্রসঙ্গে আয়োজকরা জানান, ”জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত খবর থেকে জানতে পেরেছি, পরিবেশ ও প্রকৃতির কথা বিবেচনা না করে এবং স্থানীয় ম্রো জনগোষ্ঠীর পুর্নবাসনের ব্যবস্থা না করেই চিম্বুক পাহাড়ে পাঁচ তারকা হোটেল নির্মাণের আত্মঘাতি যে পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে তাতে আমরা ভীষণভাবে উদ্বিগ্ন ও উৎকন্ঠিত। এরকম স্থানে হোটেল নির্মাণ করা হলে পাহাড়িরা তাদের আবাসস্থল হারিয়ে আরও গহিনে স্থানান্তরিত হবে যার ফলস্বরুপ বনভূমির উপর পড়বে বাড়তি চাপ। এর খেসারত দিতে হবে প্রকৃতি ও পরিবেশকে।” 

পাহাড়ে শান্তির জন্য ম্রোদের ভূমিকা স্মরণ করিয়ে দিতে গিয়ে বক্তারা বলেন, “বাংলাদেশে শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য ঐতিহাসিক ভাবে ম্রোদের বিশেষ অবদান আছে। পার্বত্য চট্টগ্রামে অশান্তকালীন সময়ে বিভিন্ন সন্ত্রাসীদলকে প্রতিহত করতে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সাথে ম্রো’রাও সর্বাত্মকভাবে অংশগ্রহণ করেন। যার ফলে সেই সময় পাহাড়ে সন্ত্রাসী দলগুলোর সাথে হানা হানিতে প্রচুর ম্রো জীবন দিয়েছেন। পাহাড়ের এই সরল মানুষগুলোর বসত ও কৃষি ভূমি দখল করে তাদের জীবনকে অনিশ্চয়তার দিকে আমরা ঠেলে দিতে পারি না।”

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে তারা আরও জানান, জীববৈচিত্র্য ও পরিবেশ-প্রতিবেশ ধ্বংসের ফলে কি হতে পারে তার ভয়াবহ রূপ সম্প্রতি আমরা দেখতে পাচ্ছি। অসময়ে বন্যা, পাহাড় ধ্বস, পানিশূন্য ঝিরি- এসবই হয়েছে প্রকৃতি বিধ্বংসী কর্মকান্ডের জন্য। আমাদের পাহাড়ের প্রকৃতি ও মানুষের এই অমূল্য সম্পদ রক্ষা করতে না পারলে পরবর্তী প্রজন্মের কাছে আমরা অপরাধী হয়ে থাকবো।

তাই আসুন সকলে মিলে পরিবেশ ও বনভূমি ধ্বংস এবং উন্নয়নের নাম করে বিভিন্ন স্বার্থান্বেষী মহলের সকল ধরনের অপচেষ্টা রুখে দেই।

ছবি: আরিফুর রহমান

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *