প্রামাণ্যচিত্র: দ্যা লাস্ট আইস মারচেন্ট

আমাদের কয়েকজনের সিনেমা দেখার একটা বদভ্যাস আছে। প্রায় সময়ই আমরা ‘ভাল’ সিনেমা দেখতে বসি। এবার কোন ‘ভাল’ সিনেমাটা দেখা যায় সকলে মিলে সেই সিদ্ধান্ত নিতে প্রতিবার আমাদের বেশ বেগ পেতে হয়। সেদিন কোন সিনেমা দেখব কিছুতেই আমরা সিদ্ধান্ত নিতে পারছিলাম না। একজন এটা বলে তো আরেকজন আরেকটা। কেউ থ্রিলার দেখতে

পর্বতারোহণ বিষয়ক যে ৫টি তথ্যচিত্র সবার দেখা উচিত

সব ধরণের স্বপ্ন ছোঁয়া এক জীবনে সম্ভব না। হয়তো এজন্যই জীবন অমূল্য। আমৃত্যু তৃষ্ণা নিয়ে বাঁচার মধ্যেই হয়তো আছে জীবনের অর্থ। দূরদেশের কোন পর্বত নিজের চোখে দেখা সম্ভব না হলেও কৃত্রিম চোখের কারণে ঘরে বসেই অভিযানের খুঁটিনাটি নিজ চোখে দেখা, অনুভব করা এখন সহজলভ্য। বই, পুরোনো কোন ঐতিহাসিক অভিযানের গল্প,

গ্রন্থ: এভারেস্ট চূড়ায় তেনজিং

মেঘ ভেদ করে আকাশের বুক ছুয়েছে এভারেস্টের চূড়া, সমতলভূমির মানুষ সেই চূড়ায় উঠে আকাশ ছোঁবে- এমন সপ্ন ছিলো বহুদিনের। বহু পর্বতারোহী সেই স্বপ্ন পূরণের সংকল্প নিয়ে এভারেস্টের চূড়া সামিটের চেষ্টা করেছেন। কিন্তু কাজটি ছিলো দুঃসাধ্য, তাই বারবার তারা ব্যর্থ হয়েছেন। তখন মনে হয়েছিলো পৃথিবীর সর্বোচ্চ চূড়া স্পর্শ করা কোন মানুষের

এভারেস্ট কি আদৌ সর্বোচ্চ চূড়া?

[ছবি: শাখাওয়াত হোসেন ইশতি] কয়েকদিন আগে এক বড় ভাইয়ের সাথে কথা হচ্ছিল। আমাদের আড্ডাগুলিতে সাধারণত পাহাড়-পর্বতের প্রসঙ্গই বেশি থাকে। কথা প্রসঙ্গে ভাই বলে উঠল, ‘এই যে এভারেস্টকে যে আমরা সর্বোচ্চ পর্বত বলি, এটা কি পুরোপুরি ঠিক? এটা কিন্তু পুরোপুরি ঠিক না!’ আমি তো তাজ্জব! বলে কি! পাগল হয়ে গেল নাকি ভাই! এভারেস্ট

গ্রন্থ: দ্য ন্যাকেড মাউন্টেইন

পর্বতারোহণ একটা নেশা, তীব্র নেশা। যার উৎপত্তি, অনুভূতি, আর উপসংহার-যে পর্বতারোহণ করে সে ছাড়া অন্য কেউ কখনও জানতে পারে না। ১৯৭০ সালে যে রেইনহোল্ড মেসনার নাঙ্গা পর্বতের তৎকালীন সম্পূর্ণ অপরিচিত রুট ডায়ামির ফেস থেকে মৃত্যু সাথে করে নেমেছিলেন; বলেছিলেন, ‘এই অভিযানে আমি আমার জীবন ছাড়া বাকি সবকিছু হারিয়েছি। এটাই বোধহয়