টিম গ্রাভিটি: গ্রীষ্মকালীন অভিযান

পরিকল্পনা ছিল আমরা যারা পর্বতারোহণ করতে ভালবাসি তাদের মধ্যে একটি প্রফেশনাল টিম গঠন করা যারা আগামীতে বাংলাদেশে এক্সট্রিম স্পোর্টসের তালিকায় মাউন্টেনিয়ারিংকে তুলে ধরতে পারবে। এই আইডিয়া থেকেই আমাদের ক্লাব ‘দ্যা কোয়েস্টে’র শুরু। ক্লাবের ভেতরে ও বাহিরে মাউন্টেনিয়ারিং অথবা ট্রেকিংয়ের কম বেশি অভিজ্ঞতা আছে এমন কয়েকজন নিয়ে একটি দল গঠন করা হয়

প্রতিবেদন: মাউন্ট ইয়ানাম

কোন দিক থেকে শুরু করবো? পরিকল্পনা থেকেই শুরু করি। এ বছরের ফেব্রুয়ারি মাসের শেষের দিকে আমাদের শিক্ষক মেহেদী রাজীব স্যারকে বললাম, স্যার আমরা তো কয়েকটা হাই-অল্টিটিউড ট্রেক করে ফেলেছি এখন সময় এসেছে একটা ছোটখাট এক্সপেডিশন করার। আর যেহেতু আমরা ইউল্যাব অ্যাডভেঞ্চার ক্লাবের সাবেক সদস্যরা এটা করতে চাচ্ছি তাই সাবেকদের ক্লাব

নেহরু ইনস্টিটিউট অব মাউন্টেনিয়ারিং: আমার অভিজ্ঞতা

রিপোর্টিংয়ের একদিন আগেই পৌঁছেছি। ক্যাম্পাসের প্রতিটি অলিগলি পরিচিত। চারপাশটা নিজের উঠান মনে হচ্ছে, যদিও প্রায় চার বছর পর আবার এসেছি। এর আগে এখান থেকেই পর্বতারোহণের মৌলিক প্রশিক্ষণ নিয়েছি। বলছি পর্বতারোহণ প্রশিক্ষণ কেন্দ্র ‘নেহরু ইনস্টিটিউট অব মাউন্টেনিয়ারিং’ এর কথা। এর ক্যাম্পাসটি সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৪ হাজার ৩০০ ফিট উঁচুতে অবস্থিত। এপ্রিলের ২৪

ট্রেক প্রতিবেদন: গাড়োয়াল হিমালয়ের সান্নিধ্যে

ধুক ধুক করছে বুকটা, উপরের দিকে তাকালেই রন্টি স্যাডেলকে দেখা যাচ্ছে, দুই দিক থেকে ত্রিশূল আর নন্দাঘুন্টির দুইটা রিজ এসে মিলেছে যে জায়গা টায় সেটাই রন্টি স্যাডেল নামে পরিচিত। ১৭০০০ ফিট উঁচু এই স্যাডেল যুগ যুগ ধরে মানুষকে আকর্ষণ করে চলেছে নিজের মায়াবি উচ্চতায়। চোখের সীমানায় চলে এসেছে জায়গাটা সেই

ব্যর্থ অভিযানের ডায়রি

অভিযান সময়কাল নভেম্বর, ২০১৭ দলের সদস্য আরিফুর রহমান, আশরাফুল হক, শাহিন গাফফার লক্ষ্য চুলু ইস্ট (৬৫৮৪ মিটার)/ চুলু ফার ইস্ট (৬০৫৯ মিটার) মূল রিজলাইনের ঠিক নিচে যখন পৌঁছেছি ঘড়িতে তখন দুপুর ১২ টা পেরিয়েছে। ব্যাকপ্যাকটা রেখে ওখানেই বসে পড়লাম, খুব হতাশ লাগছে। গত ২৭ ঘণ্টায় প্রায় ১৪০০ মিটারের মত হাইট গেইন করেছি, ৩৯৮৫ মিটার থেকে এখন