ভাবনার পাহাড়

কবে যাব পাহাড়ে

[ছবি] আশফাক হাসান এক. আমার আব্বু একটা কথা প্রায় সময়ই বলে, পৃথিবীতে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ হবে খাবারের পানির অভাবে। যত দিন যাচ্ছে আমিও কথাটার গুরুত্ব বুঝতে পারছি। একদিকে পৃথিবীর সঞ্চিত থাকা পানি গলে সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বৃদ্ধি পাচ্ছে আরেক দিকে দেখা দিচ্ছে খাবার পানির অভাব। পানির এই দ্বিমুখী প্রভাবে মানব সভ্যতা আজকে ধ্বংসের একেবারে

হিম যুদ্ধের শেষ অধ্যায়

[ছবি] কে-টু / উইকিমিডিয়া কমন্স এক. তখন অক্টোবরের শেষ সপ্তাহ। রোথাং লা ও কুনজুম লা পাসে অতিরিক্ত তুষারপাতের কারণে রাস্তা বেশ কিছুদিন আগেই সরকারিভাবে বন্ধ হয়ে গেছে। এর মধ্যেই এক ডেয়ারডেভিল ড্রাইভার বিপদের তোয়াক্কা না করে আমাদের স্পিতি পৌঁছে দিল। অনেকদিন থেকেই আমাদের ইচ্ছা ছিল হিমালয়ের তীব্র ঠান্ডায় নিজেদের পরীক্ষা করে দেখব।

এভারেস্টে মৃত্যুর নানাদিক

১৯৯৬ সালে পৃথিবীর সর্বোচ্চ পর্বত শৃঙ্গ মাউন্ট এভারেস্টে ঘটে যায় পর্বতারোহণ ইতিহাসের অন্যতম দূর্ঘটনা। সর্বোচ্চ শৃঙ্গে আরোহণ করার অন্ধ আকর্ষণ থেকে জন্ম নেয়া ব্যবসায়িক প্রতিযোগীতার কারণে সেই দূর্ঘটনায় মারা যায় ৮ জন অভিযাত্রী। এই দূর্ঘটনার পর থেকে পর্বতে বাণিজ্যিক অভিযানগুলোর নিরাপত্তা নিয়ে সবাই সরব হয়ে উঠে। নেপাল সরকারের পক্ষ থেকে

জোঁকের সাতকাহণ

বর্ষাকাল চলছে। এই সময়ে আমাদের পাহাড়গুলো অপরূপ সাজে নিজেকে মেলে ধরে। ঝিরি-জলপ্রপাত-খালগুলো পানির কলকল শব্দে মুখর হয়ে উঠে, জলপ্রপাতগুলো নবযৌবনে উচ্ছাসিত হয়ে উঠে, বর্ষার পানি পেয়ে গাছে গাছে কচি সবুজ পাতা ছেয়ে যায়, পাহাড়ের ঢালে ঢালে মেঘ এসে মুহূর্তেই ভিজিয়ে দেয় ক্লান্ত দেহ। তাই এটাই আমাদের পাহাড়গুলোতে ট্রেকিং ও হাইকিংয়ের

কিংবদন্তী ম্যালরী | পর্ব ১

মৃত্যুর মধ্য দিয়েই জীবনের পরিপূর্ণতা আসে। সকল গল্প শেষ হয়ে যায়। কিন্তু জর্জ ম্যালরীর ক্ষেত্রে বিষয়টি এমন ছিল না। ১৯২৪ সালের ৮ই জুন, এভারেস্টের বুকে হারিয়ে যাওয়ার পর পুরো ব্রিটিশ সাম্রাজ্যে তার বীরত্বের কাহিনী ছড়িয়ে পড়ল। সঙ্গী স্যান্ডি আরভাইনের সাথে তার হারিয়ে যাওয়ায় তৈরি হল নতুন এক রহস্য। তারা এভারেস্টের