অদ্রি পর্বতারোহণ প্রশিক্ষণ কোর্স

অদ্রি পর্বতারোহণ প্রশিক্ষণ কোর্স
● বেসিক-রক
কোর্স ফি ৭০০০ টাকা
সিলেবাস নানা রকম রোপ ও তার ব্যবহার, প্রয়োজনীয় নট, পর্বতারোহণে ব্যবহার করা সকল সাজ সরঞ্জামের সাথে পরিচিতি ও ব্যবহার, পরিহার্য টার্মস ও টার্মিনোলজি,বেসিক রক ক্লাইম্বিং, আরোহণ (জুমারিং) ও অবারোহণের (রেপেলিং) নানা রকম উপায় ও কৌশল, সুরক্ষা, বিলেয়িং, সিগনেলিং, ক্যাম্পিং এর কলা কৌশল ও বেসিক ম্যাপ রিডিং।
প্রশিক্ষণের পূর্বশর্ত ১৫ বছর বয়সের উর্দ্ধে যে কেউ এই কোর্সে অংশগ্রহণ করতে পারবেন।
সময়ের ব্যাপ্তি ৬ দিন
সর্বোচ্চ আসন সংখ্যা ১২ জন
● অ্যাডভান্স-রক
কোর্স ফি ৭৫০০ টাকা
সিলেবাস বেসিক কোর্সে শিখে আসা কৌশলগুলো ঝালাই করে নেওয়া। লিড ক্লাইম্বিং এর কৌশল, রুট সিলেকশন ও এসেসমেন্ট, এনকরিংয়ে কলা-কৌশল, রোপ ম্যানেজমেন্ট, ডাবল রোপ টেকনিক, ক্লাইম্বিং মুভমেন্ট টেকনিক, টিম ম্যানেজমেন্ট এন্ড লিডারশিপ ট্রেইনিং, মাল্টি পিচ ক্লাইম্বিং, এইড ক্লাইম্বিং, 5.7(YDS) লেভেলের রক প্রবলেম লিড করা এবং আপদকালীন ব্যবস্থাপনা।
প্রশিক্ষণের পূর্বশর্ত বেসিক কোর্স সফলতার সাথে শেষ করা প্রশিক্ষণার্থীগণ এই কোর্স করতে পারবেন।
সময়ের ব্যাপ্তি ৭ দিন
সর্বোচ্চ আসন সংখ্যা ১২ জন
● স্নো এন্ড আইস ক্রাফট
কোর্স ফি পরবর্তীতে জানানো হবে
সিলেবাস আইস এক্সের নানাবিধ ব্যবহার কৌশল এবং সুরক্ষা, আইস ক্লাইম্বিং, স্নো ক্লাইম্বিং, বিভিন্ন টেরেইনে শরীরের ভারসাম্য ঠিক রাখার কৌশল, গ্লেসিয়ার অতিক্রম করার কলা-কৌশল, রোপ আপ টেকনিক, রুট ফাইন্ডিং, রুট ওপেনিং, ক্রেভাস নেভিগেশন, ক্রেভাস রেস্কিউ টেকনিক, আধুনিক এবং ঐতিহ্যগত নেভিগেশন টেকনিক, গ্লেসিওলজি এবং ক্রেভাস চেনার উপায়, বরফে এংকরিং ও বিলেয়িং, ক্রাম্পনের ব্যবহার, বরফে ও অতি উচ্চতায় ক্যাম্প করার কলা কৌশল, ক্যাম্প ম্যানেজমেন্ট, জামা-কাপড়ের পরিপূর্ণ ধারনা, অতি উচ্চতায় নানা রকম সমস্যা সম্পর্কে সম্যক ধারনা, পর্বতের আবহাওয়ার রকমভেদ, ইকোলজি, স্বকীয় উপায়ে পর্বতারোহণের কলা কৌশল, এবং পর্বতারোহণের নীতিগত শাস্ত্র।

** কোর্সের শেষ ধাপে একটি পর্বতাভিযান কিভাবে পরিচালিত হয় সেটা ৫৫০০-৬০০০ মিটারের একটি পর্বতে অভিযানের মাধ্যমে হাতে কলমে শেখানো হবে।

প্রশিক্ষণের পূর্বশর্ত বেসিক ও অ্যাডভান্স কোর্স সফলতার সাথে সম্পন্ন করা প্রশিক্ষণার্থীরা উক্ত কোর্সে অংশ নিতে পারবেন।
সময়ের ব্যাপ্তি ১৫-১৮ দিন
সর্বোচ্চ আসন সংখ্যা ১৫ জন

পর্বতারোহণ অনেকের কাছে একটি অ্যাডভেঞ্চার স্পোর্টস, অনেকের কাছে অবসর কাটানোর শখ আবার অনেকের কাছে আরাধনার মাধ্যম। পর্বতারোহণের সুনির্দিষ্ট ভাষা আছে, আছে তার ব্যাকরণ। স্বাচ্ছন্দ্যের সঙ্গে পর্বতে ঘুরে বেড়াতে হলে পর্বতারোহণের সেই ভাষা শিখতে হয়, ব্যাকরণ জানতে হয়। এর খুঁটিনাটি কৌশলগুলো আয়ত্বে আনতে হয়।

ক্রিকেট ফুটবল ভাল খেলতে হলে যেমন দিনের পর দিন প্রশিক্ষণ ও অনুশীলন চালিয়ে যেতে হয়; শ্রুতিমধুর গান গাইতে যেমন প্রতিদিন নিয়ম করে গলা সাধতে হয় তেমনি একইভাবে পর্বতারোহণও একই রকম সাধনার বিষয়।

পর্বতারোহণ একটি সাধনা যার প্রতি পদে পদে বাধা, বিপত্তি ও বিপদ লুকিয়ে থাকে। একটি ছোট ভুল মারাত্মক রকমের দূর্ঘটনার কারণ হতে পারে। সেখানে মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে। এজন্য পাহাড়ি পথে সঠিক দিক নির্দেশনা, বিভিন্ন রকম টেরেইনে ক্যাম্পিংয়ের কলা-কৌশল, হিমবাহে হাঁটার কৌশল, ঝুঁকিপূর্ণ জায়গা চেনার উপায়, রক ক্রাফট, আইস ক্রাফট ইত্যাদি খুঁটিনাটি বিষয়গুলো সম্পর্কে খুব ভালোভাবে জানা ও শেখার প্রয়োজন রয়েছে। এরপর নিয়মিত এই কৌশলগুলো অনুশীলন ও চর্চা করে যেতে থাকলেই কেবল পর্বতারোহী হিসেবে দক্ষ হয়ে উঠা যায়। স্বাচ্ছন্দে ও স্বাধীনভাবে পাহাড়কে উপভোগ করা যায়।

পর্বতারোহণের উপর বইপত্র পড়ে, বারবার পাহাড়ে গিয়ে নিজেদের মত হয়ত অনেক কিছুই শেখা যায়, কিন্তু এই প্রক্রিয়াটি অনেক সময়সাক্ষেপ একটি ব্যাপার। ভুল করা ও আবার ভুল থেকে শিক্ষা, এভাবে শিখতে শিখতে জীবনের মূল্যবান কিছু সময় হয়ত চলে যায়। আবার এই উপায়ে খুঁটিনাটি অনেক কিছুই জানা থেকে বঞ্চিত হতে হয়। সবচেয়ে বড় অসুবিধা হচ্ছে ভুলগুলো ধরিয়ে শুধরে দেওয়ার কেউ না থাকায় এই উপায়ে শিক্ষাটা পরিপূর্ণতা পায় না। আর মোটা দাগে পর্বতে ভুলের কোন ধরনের কোন অবকাশ নেই।

বাংলাদেশের পর্বতারোহণকে ভিন্ন উচ্চতায় নিয়ে যেতে আগ্রহী তরুণ-তরুণীদের জন্য অদ্রি পাঠাশালা কাঠামোবদ্ধ প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা নিয়েছে। যেখানে পাহাড় পর্বতের একদম সাধারণ বিষয়গুলো থেকে শুরু করে প্রতিনিয়ত পরিবর্তন হওয়া পর্বতারোহণের কলা-কৌশলগুলো প্রশিক্ষণার্থীদের হাতে কলমে শেখানো হবে।

অনেক আগ্রহ থাকা স্বত্তেও শুধুমাত্র সুযোগ, সময় ও অর্থের কথা চিন্তা করেই অনেকে স্বপ্নের পথে পা বাড়াতে দ্বিধাবোধ করি। অদ্রি পাঠশালা এই সমস্যাগুলোকে মাথায় রেখেই তার প্রশিক্ষণের মডেলটা গুছিয়েছে।

একটি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে পর্বতারোহণের মত ব্যাপক প্রক্রিয়াটি বিশদভাবে জানা সম্ভবপর নয়। আবার দীর্ঘ সময় ধরে এই প্রশিক্ষণগুলো করাও সবার পক্ষে সম্ভবপর হয়ে উঠে না। তাই পর্বতারোহণের পুরো প্রক্রিয়াটিকে কয়েকটি ভাগে ভাগ করে প্রশিক্ষণের সিলেবাসটি প্রণয়ন করা হয়েছে যেন পর্বতারোহণের সামগ্রিক ধারণাটা কেউ ধাপে ধাপে আত্মস্থ করতে পারে।

প্রথমেই পর্বতারোহণের প্রাথমিক ও সাধারণ বিষয়গুলো সম্পর্কে সম্যক ধারণা প্রদান ও রক ক্লাইম্বিংয়ের উপর বেসিক প্রশিক্ষণের জন্য বেসিক কোর্স প্রণয়ন করা হয়েছে। ৭ দিনের এই কোর্স করার পর প্রতিটি প্রশিক্ষণার্থী পর্বতারোহণের জন্য অপরিহার্য সাধারণ জ্ঞান লাভ করবে যা তাদের পরবর্তী অ্যাডভান্স কোর্সের জন্য প্রস্তুত করবে।

বেসিক কোর্স সম্পন্ন করা প্রশিক্ষণার্থীদের পর্বতারোহণের টেকনিক্যাল বিষয়গুলো সম্পর্কে ৪ দিনের অ্যাডভান্স কোর্সে হাতে কলমে শেখানো হবে। অ্যাডভান্স কোর্স সম্পন্ন করা সকল প্রশিক্ষণার্থীকে এমনভাবে তৈরী করা হবে যেন তারা পর্বতের দূরহ পরিবেশ যাওয়ার জন্য শারীরিক, মানসিক ও কৌশলগত দিক থেকে প্রস্তুত হতে পারে।

বেসিক ও অ্যাডভান্স কোর্স সফলভাবে সম্পন্ন করা আগ্রহী প্রশিক্ষণার্থীদের পরবর্তী কোর্সে নিয়ে যাওয়া হবে অতি উচ্চতায় তুষার আর বরফের রাজ্যে। ১৫ দিনের এই প্রশিক্ষণে তুষারের মধ্য দিয়ে হাঁটার কৌশল, গ্লেসিয়ার ক্রসিং, স্ট্রিম ক্রসিং, ক্রেভাস রেস্কিউ, সেলফ এরেস্ট, আইস স্ক্রু ও পিটনের ব্যবহার, রুট ফাইন্ডিং, রুট ওপেনিং ইত্যাদি সম্পর্কে নিবিড়ভাবে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। হিমালয়ের ৫৫০০-৬০০০ মিটার উচ্চতার একটি শৃঙ্গে পুরোদস্তুর অভিযান পরিচালনার মাধ্যমে কোর্সের কার্যক্রম শেষ হবে।

বেসিক রক ক্লাইম্বিং কোর্সের চতুর্থ ব্যাচের প্রশিক্ষণ সম্পন্ন
পরবর্তী বেসিক রক ক্লাইম্বিং কোর্সের তারিখ ২৪ই নভেম্বর, ২০১৮

[ক] ইন্টারন্যাশনাল ক্লাইম্বিং অ্যান্ড মাউন্টেইনিয়ারিং ফেডারেশন ও ভারতের এইচ.এম.আই, এন.আই.এম এর মত ইন্সটিটিউট থেকে প্রশিক্ষণ নেওয়া অভিজ্ঞ পর্বতারোহী, শেরপা ও প্রশিক্ষকদের তত্ত্বাবধানে প্রশিক্ষণগুলো পরিচালিত হবে।


[খ] সকল প্রশিক্ষণার্থীর জন্য পর্যাপ্ত সাজ সরঞ্জাম।


[গ] পর্বতারোহণের একদম পুরনো কলা-কৌশল থেকে শুরু করে একদম আধুনিক পদ্ধতিগুলো হাতে কলমে প্রশিক্ষণ।


[ঘ] পাহাড়-পর্বতের প্রকৃতি ও পরিবেশের মধ্যেই প্রশিক্ষণ।


[ঙ] স্বল্প সময়ের মধ্যে কোর্স, তাই সময়ের ব্যাপারে সমস্যা কম।


[চ] কম খরচে অত্যাধুনিক প্রশিক্ষণ।


[ছ] সর্বনিম্ন সংখ্যক প্রশিক্ষণার্থী নিয়ে একেকটি ব্যাচ করে প্রশিক্ষণ দেয়া যেন সবাইকে সমান ভাবে গুরুত্ব দিয়ে আর নিবিড়ভাবে শেখানো যায়।


[জ] শক্তিশালী সিলেবাস যা প্রশিক্ষণার্থীদের পাহাড়ে স্বাচ্ছন্দে অভিযান পরিচালনা করতে ও স্বাবলম্বী অভিযাত্রী হিসেবে গড়ে তুলবে।

[১] বেসিক রক ক্লাইম্বিং কোর্স কি?

পর্বতারোহণ প্রশিক্ষণকে এখানে মূলত দুটি ভাগে ভাগ করা হয়েছে। পাহাড় পর্বত প্রধানত পাথর, শিলা, তুষার আর বরফ দিয়ে ঢাকা থাকে, তাই ‘রক’ আর ‘আইস’ বিভাগে ভাগ করে প্রশিক্ষণের সিলেবাসটি সাজানো হয়েছে।

বেসিক কোর্সে প্রশিক্ষণার্থীদের পর্বতারোহণের সাধারণ বিষয়গুলোর সাথে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হবে। যেখানে ৫ দিনের ক্যাম্পে রক সম্পর্কীয় পর্বতারোহণের সাধারণ বিষয়গুলো তুলে ধরা হবে। সেখানে রোপ, নট, পর্বতারোহণে ব্যবহার করা সকল সাজ-সরঞ্জামের সঙ্গে পরিচিতি, পর্বতারোহণের নানা রকম টার্মস ও টার্মিনোলজি, বেসিক রক ক্লাইম্বিং, আরোহণ ও অবরোহণের নানা রকম উপায়, ক্যাম্পিংয়ের কলা কৌশল ও বেসিক ম্যাপ রিডিং শেখানো হবে।

 

[২] বেসিক রক ক্লাইম্বিং শেষে আমাকে কি বাধ্যতামূলকভাবে বাকি কোর্সগুলো করতে হবে?

না, সবগুলো কোর্স করতে আপনি বাধ্য নন। কিন্তু কেউ যদি রক ক্লাইম্বিং অ্যাডভান্স কোর্স করতে চান তাহলে তাকে অবশ্যই বেসিক কোর্স সফলভাবে শেষ করে আসতে হবে। একইভাবে আপনি যদি আইস ক্রাফট কোর্সে অংশগ্রহণ করতে চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই বেসিক ও অ্যাডভান্স কোর্স সফলভাবে সম্পূর্ণ করে আসতে হবে।

 

[৩] পর্বতারোহণের প্রশিক্ষণ নিতে চাইলে আমাকে কি ধরনের নিজেস্ব প্রস্তুতি নিতে হবে?

পর্বতারোহণের প্রতি প্রচন্ড আগ্রহ এবং যেকোন পরিস্থির সাথে খাপ খাইয়ে নেয়ার মত মানসিকতাই এই কোর্সগুলোতে অংশ নেয়ার প্রাথমিক শর্ত। সেই সাথে পর্বতারোহোণের জন্য যেহেতু সুঠাম স্বাস্থ্য ও শারীরিক সক্ষমতাও সমানভাবে জরুরী তাই প্রশিক্ষণার্থীদের নিয়মিত হাঁটাহাটি, জগিং ও ব্যায়াম করে শরীরকে প্রশিক্ষণের জন্য নিজেদের প্রস্তুত থাকতে হবে। এছাড়াও কোর্সে সঙ্গে প্রয়োজনীয় যেসকল ব্যক্তিগত জিনিষপত্র নিতে হবে, সেগুলো সময়মত প্রস্তুত রাখা।

 

[৪] এই প্রশিক্ষণগুলো কোথায় অনুষ্ঠিত হবে?

পর্বতারোহণের কোর্সগুলো ভারতের পশ্চিমবঙ্গ, হিমাচল প্রদেশ, লাদাখ, উড়িষ্যা, মাহাবালেশ্বর, বেঙ্গালুরসহ পাহাড়-পর্বতময় বিভিন্ন জায়গায় অনুষ্ঠিত হবে।

 

[৫] কোর্সগুলো মোট কত দিনের হবে?

বেসিক ও অ্যাডভান্স রক ক্লাইম্বিং কোর্সগুলো ঢাকা থেকে ঢাকা মোট সাত (০৭) দিনের মধ্যে রাখা হবে। আইস ক্রাফট প্রশিক্ষণের সময়সীমা হবে সাধারণত ১৫-১৮ দিনের।

 

[৬] ভারতের ভিসা কি নিজেকেই করতে হবে?

জ্বী। ভিসার ব্যবস্থা নিজেস্ব খরচে ও যথাসময়ে আপনার নিজেকেই করতে হবে।

 

[৭] কোর্সে কিভাবে নাম নিবন্ধন ও ফি জমাদান করব?

ঘোষিত স্ব স্ব কোর্সের ইভেন্টে প্রদত্ত আবেদনপত্র ডাউনলোড করুন। নির্ধারিত/ঘোষিত সময়ের মধ্যে ফর্মটি প্রিন্ট করে পূরণ করে, সঙ্গে উল্লেখিত পরিমাণ ছবি, পাসপোর্টের ফটোকপি এবং কোর্স ফি নিয়ে অদ্রির অফিসে এসে জমা দিতে হবে।

 

[৮] আমাকে কি এক বছরের মধ্যেই এই তিনটি কোর্স সম্পন্ন করতে হবে?

না। এমন কোন বাধ্যবাধকতা নেই।

 

[৯] আমি কি এক বছরে শুধুমাত্র একটি কোর্স করতে পারব?

আপনি আপনার সময়, সুযোগ ও সুবিধামত কোর্সে অংশ নিতে পারবেন। চাইলে একই বছরে তিনটি, বা প্রতি বছর একটি করে কোর্সে অংশ নিতে পারবেন।

[১০] পূর্বে অন্য কোথাও বেসিক কোর্স করা থাকলে আমি কি অদ্রি পাঠশালার অ্যাডভান্স কোর্সে অংশ নিতে পারব?

হ্যাঁ। কিছু মানদণ্ড পূরণের ভিত্তিতে পারবেন।

[১১] প্রশিক্ষণগুলো বাংলাদেশে পরিচালনা করা হচ্ছে না কেন?

বাংলাদেশে পর্বতারোহণ প্রশিক্ষণের জন্য উপযুক্ত প্রাকৃতিক অবকাঠামো যেমন, অতি উচ্চতা এবং শিলা প্রকৃতি নেই। সেই সাথে কৃত্রিম উপায়ে প্রশিক্ষণ দেয়ার জন্যেও যে ধরনের অবকাঠামো প্রয়োজন এখন পর্যন্ত বাংলাদেশে এমন কিছু গড়ে উঠেনি বিধায় এই প্রশিক্ষণগুলো এখানে পরিচালনা করা সম্ভব হচ্ছে না।

[১২] কোর্সগুলো ভারতে পরিচালনা করার কারণ কি?

বেশ কিছু কারণে আমাদের এই প্রশিক্ষণ গুলো ভারতে পরিচালনা করা হচ্ছে। তার মধ্যে অন্যতম কারন হচ্ছে পর্বতাভিযান প্রশিক্ষণের জন্য উপযুক্ত প্রকৃতি ও পরিবেশের সহজলভ্যতা। সেই সাথে আর্থিক বিষয়টিও যেন আয়ত্বে রাখা যায় সেটি নিশ্চিত করা।

 

[১৩] ভারতীয় ভিসার জন্য কোন ল্যান্ড পোর্ট এপ্লাই করব?

বেনাপোল স্থল বন্দর।

 

[১৪] ট্র্যাভেল ট্যাক্স কি আমাকেই দিতে হবে?

জ্বী। ট্র্যাভেল ট্যাক্স আপনাকেই পরিশোধ করতে হবে।

 

[১৬] বুকিং মানির টাকা অফেরতযোগ্য কেন?

আমাদের বেসিক কোর্সের প্রশিক্ষণটি হচ্ছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে। প্রশিক্ষণ গ্রাউন্ডে পৌঁছানোর জন্য আমাদের ট্রেনের টিকেট রিজার্ভেশন করতে হয়। সেই সঙ্গে প্রশিক্ষণের জন্য দরকারী সকল সাজ সরঞ্জাম ও গিয়ার ভাড়া করতে হয়। কেউ বুকিং মানি পরিশোধ করলে সাথে সাথেই এই পরিমাণ টাকাটি নিশ্চিতভাবে খরচ হয়ে যাবে। তাই কেউ পরবর্তীতে কেউ অংশ নিতে না পারলেও এই পরিমাণ টাকা ফেরত দেওয়া সম্ভব হবে না।


 

(Visited 1 times, 1 visits today)
অদ্রি সম্পাদক
অদ্রি সম্পাদক
সম্পাদকরাও একেকজন পাঠক।

৩ thoughts on “অদ্রি পর্বতারোহণ প্রশিক্ষণ কোর্স

  1. আমি বেসিক কোর্স এ অংশ নিতে চাই। সেক্ষেত্রে কোর্স ফি-সহ ভর্তির প্রক্রিয়া নিয়ে বিস্তারিত জানতে চাই।

  2. জনাব,
    আমি বাংলাদেশের একজন নাগরিক হয়ে দেশের সম্মান বয়ে আনতে মাউন্ট এভারেষ্ট জয় করতে চাই।
    এতে আপনার প্রয়োজনীয় সহযোগিতা কামনা করছি। মোবাইল নং – ০১৮৮৫৪০১২১৮।

মন্তব্য করুন

*Please Be Cool About Captcha. It's Fun! :)