‘দেও তিব্বা’ অভিযানে যাচ্ছে টিম হোয়াইট এক্স


হিমালয় পর্বতমালার পির প্রাঞ্জল পর্বতশ্রেনীর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পর্বত ৬০০১ মিটার উচ্চতার ‘দেও তিব্বা’ অভিযানে যাচ্ছে চার সদস্যের ‘টিম হোয়াইট এক্স’। এই উপলক্ষ্যে গত ২৫ শে অগাস্ট বেলা ১২ টায় ঢাকার স্থানীয় একটি রেস্টুরেন্টে জাতীয় পতাকা প্রদান অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।


বা থেকে তাসকিন আলী, আসিফ আলতাফ, আসাদ জামান ও সাদমান সাকিব |  [ছবি] মাহজাবিন ফেরদৌস প্রভা


অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট পর্বতারোহী প্রশিক্ষক মীর শামছুল আলম বাবু। সম্প্রতি ইয়ানাম পর্বত আরোহণকারী পর্বতারোহী মিয়াজি সাগর অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন। ঘরোয়া পরিবেশে অভিযাত্রীরা তাদের পরিকল্পনার বিভিন্ন দিক উপস্থিত সকলের সামনে তুলে ধরেন। শেষে ‘দেও তিব্বা’ পর্বত অভিযানে অংশগ্রহণকারী পর্বতারোহীদের হাতে জাতীয় পতাকা তুলে দেন মীর শামছুল আলম বাবু।

দেও তিব্বা পর্বতাভিযানে অংশ নিতে যাওয়া ‘টিম হোয়াইট এক্স’ দলটির নেতৃত্ব দিচ্ছেন আসাদ জামান। সহ দলপতি হিসেবে দায়িত্বে থাকছেন আসিফ আলতাফ। দলের অপর দুজন সদস্য হলেন তাসকিন আলী এবং সাদমান সাকিব। দলনেতা আসাদ জামান জানান, সেপ্টেম্বরে তারা ভারতের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করবেন। হিমাচল প্রদেশের কুল্লু থেকে তাদের ১৫ দিন ব্যাপি অভিযান শুরু হবে।

এতদিন একা পর্বত অভিযানে যেতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করা টেক উদ্যোক্তা আসাদ জামান জানান, তরুণদের পর্বতারোহণে  অনুপ্রাণিত করতে এইবার তিনি দলীয়ভাবে অভিযান পরিকল্পনার সিদ্ধান্তটি নিয়েছেন। অভিযান পরিকল্পনা করার সময় দলের সকলের মধ্যে যেভাবে বোঝাপড়া হয়েছে তাতে তিনি সন্তুষ্ট হয়ে একটি ভালো অভিযান হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তিনি আরও জানান, এই অভিযানে বেশ কিছু টেকনিক্যাল অভিজ্ঞতা নেয়ার সুযোগ থাকবে যা পরবর্তীতে কঠিন অভিযানগুলোতে তাদের সাহায্য করবে।

অভিযানের জন্য ‘দেও তিব্বা’ পর্বত চূড়া পছন্দ করার বিষয়ে সহনেতা আসিফ আলতাফ বলেন, তারা এই চূড়াটি অভিযানের জন্য পছন্দ করেছেন কারণ এতে পর্বতের প্রায় সবগুলো ফিচার, যেমন হিমবাহ, ক্রেভাস, রিজলাইনে পর্যাপ্ত বরফ থাকবে। উচ্চতায় এই বাধাগুলো অতিক্রমের জন্য তাদের বেশ কিছু টেকনিক্যাল সরঞ্জাম ব্যবহার করে আরোহণ ও অবারোহণ করতে হবে। ৬ হাজার মিটার উচ্চতার এই পর্বতে ৫৫০০ মিটার উচ্চতায় রাত কাটানোর পাশাপাশি একসাথে অনেকগুলো অভিজ্ঞতা পাওয়া যাবে এমনটা আশা করেই তারা দেও তিব্বা যাচ্ছেন।

ভারতের হিমাচল প্রদেশের কুল্লু জেলায় অবস্থিত ‘দেও তিব্বা’ হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের জন্য একটি পবিত্র পর্বত। তারা বিশ্বাস করেন এই পর্বতের সমতল চূড়ায় দেবতাদের সভা বসে যা পার্শ্ববর্তী ইন্দ্রাসন পর্বতে বসে দেবতা ইন্দ্র পরিচালনা করেন। জগতসুখ উপত্যাকার এই পর্বতে আরোহণকালে অভিযাত্রীরা ৪৪৮০ মিটার উচ্চতায় তাদের বেইজ ক্যাম্প স্থাপন করবেন।

বেইজ ক্যাম্প থেকে দেও তিব্বা হিমবাহ অতিক্রম করে তারা এক নম্বর ক্যাম্প স্থাপন করবেন। সেখান থেকে পিটন রিজের দক্ষিণ-পশ্চিম অংশ দিয়ে ৫২০০ মিটার উচ্চতার ধুয়ানগান-কোল এ দুই নম্বর ক্যাম্প স্থাপন করবেন। দুই নম্বর ক্যাম্প থেকে লম্বা স্নো ফিল্ড অতিক্রম করে আনুমানিক ৫৬০০ মিটার উচ্চতায় তারা সামিট ক্যাম্প স্থাপন করার পরিকল্পনা করছেন।

(Visited 1 times, 1 visits today)

মন্তব্য করুন

*Please Be Cool About Captcha. It's Fun! :)