গ্রন্থ: এভারেস্ট চূড়ায় তেনজিং


মেঘ ভেদ করে আকাশের বুক ছুয়েছে এভারেস্টের চূড়া, সমতলভূমির মানুষ সেই চূড়ায় উঠে আকাশ ছোঁবে- এমন সপ্ন ছিলো বহুদিনের। বহু পর্বতারোহী সেই স্বপ্ন পূরণের সংকল্প নিয়ে এভারেস্টের চূড়া সামিটের চেষ্টা করেছেন। কিন্তু কাজটি ছিলো দুঃসাধ্য, তাই বারবার তারা ব্যর্থ হয়েছেন। তখন মনে হয়েছিলো পৃথিবীর সর্বোচ্চ চূড়া স্পর্শ করা কোন মানুষের পক্ষে হয়ত সম্ভব হবে না, স্বপ্ন স্বপ্নই থেকে যাবে। কিন্তু ১৯৫৩ সালের ২৯ মে দুই সাহসী পর্বতারোহী এডমণ্ড হিলারী আর তেনজিং নোরগে প্রচণ্ড তুষারপাত, ঝোড়ো হাওয়া, খাদ্যসল্পতা, এক অর্থে সব ধরনের প্রতিবন্ধকতাকে পরাজিত করে এভারেস্টের চূড়া আরোহণ করেন। এভারেস্ট আরোহণের প্রস্তুতি পর্ব এবং মূল অভিযান যে কি বিস্ময়কর, কষ্টসাধ্য ও ঝুঁকিপূর্ণ ছিল,  তেনজিংয়ের বর্ণনায় সেই মুহূর্তগুলা জীবন্ত হয়ে ধরা দিয়েছে এই বইটিতে।

এভারেস্ট থেকে বহু দূরের এক অজগ্রামে জন্মগ্রহণ করা পশুপালক রুগ্ন ছেলেটি কেমন করে এভারেস্ট আরোহণের সপ্ন দেখেছিলেন, আর হাজারো প্রবঞ্চনা ও প্রতিকূলতা পেরিয়ে করে কেমন করে এভারেস্টের চূড়ায় পা রাখার প্রথম মানুষটি হবার সম্মান অর্জন করেছিলেন, তারই নির্ভেজাল সত্য ঘটনা অকপটে প্রকাশ করেছেন সরলমনা তেনজিং, যা জেমস র‍্যামজে উলম্যান শ্রুতিবদ্ধ করেন। তারই ভাষান্তর ‘এভারেস্ট চূড়ায় তেনজিং’।

অসাধারণ একটি বই, অতি সাধারণ এক ছেলের অসাধারণ একটা গল্প। এ গল্প পাহাড়কে ভালবাসার, তেনজিং ছোটবেলায় যে সপ্ন দেখেছিলো চোমোলোংমা নিয়ে, সেই স্বপ্ন পূরণের গল্প।

জেমস র‍্যামজে উলম্যানের লেখা  আগের কোন বই আমার পড়া হয়নি। তেনজিং যেহেতু লেখাপড়া জানতো না, উলম্যান তেনজিংয়ের বর্ণনা শুনে বইটি লিখছেন। বইটা শেষ করার পর বুঝলাম, ঐসময়ে উলম্যানের থেকে ভালো কেউ হয়তো এত সুন্দর করে লিখতে পারতো না। বইটি বাংলায় অনুবাদ করেছে এনায়েত রসুল। অনুবাদকের চমৎকার অনুবাদের কল্যাণে এক বসাতে পড়ে শেষ করার মত একটা বই।

হিমালয়ের কোলে শোলো খুম্বুতে বেড়ে উঠা ছেলে তেনজিং, ছোটবেলা থেকেই পাহাড়কে ভালবেসেছেন, হিমালয় ছিলো তার হৃদয়ে। এভারেস্ট আরোহণের আগে তেনজিংয়ের বিভিন্ন অভিযানের সফলতা-ব্যর্থতা গল্প জানতে পারি, আরও জানতে পারি সপ্তমবার এভারেস্ট অভিযানে সে চূড়ায় উঠতে সক্ষম হন।

হিমালয় আরোহণের পর যেসব বিতর্কিত বিষয়ে পৃথিবী জুড়ে হইচই, সেসব প্রশ্নের উত্তর আছে এই বইতে। সবথেকে বিতর্কিত প্রশ্ন, কে প্রথমে উঠেছিলেন এভারেস্ট শীর্ষে– তেনজিং না হিলারি? এই প্রশ্নের উত্তরের পাশাপাশি, অভিযানের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত বর্ণনা, ইংরেজ অভিযাত্রী দল ও শেরপাদের মধ্যে ভুল বুঝাবুঝি, আরোহণ পরবর্তী খ্যাতির বিড়ম্বনা, সংবাদপত্রে ভুল তত্ত্ব প্রচার, সাধারণ জনগনের মাত্রারিক্ত পাগলামি কিছুই বাদ যায়নি।

সবশেষে বলা উচিত যে, যারা পাহাড় ভালবাসেন, তাদের সবার এই বইটা অবশ্যই পড়া উচিত। সংগ্রহে রাখার মত একটি মাস্টারপিস।

ছবি [অদ্রি পাঠগার]


বই সম্পর্কিত তথ্যাবলী

নাম: এভারেস্ট চূড়ায় তেনজিং
লেখক: জেমস র‍্যামজে উলম্যান
প্রকাশনী: আকাশ
প্রকাশকাল: ফেব্রুয়ারি, ২০১৬
পৃষ্ঠা সংখ্যা: ২৫৫

(Visited 1 times, 1 visits today)

মন্তব্য করুন

*Please Be Cool About Captcha. It's Fun! :)